শাকিল হাসান, স্বাধীন কন্ঠ নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ
কাপাসিয়ায় ৭ এপ্রিল রোববার বিকেলে একটি বেসরকারি হাসপাতালে জোড়া লাগানো জমজ শিশুর জন্ম হয়েছে। সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ভূমিষ্ট জোড়া শিশুদ্বয় এবং তার মা বর্তমানে সুস্থ রয়েছে। তবে তাদের অভিভাবকের অনুরোধে তাদেরকে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ^বিদ্যালয়ে রেফার্ড করা হয়েছে।
জানা যায়, রোববার বিকেলে পাশ^বর্তী শ্রীপুর উপজেলার রাজাবাড়ি ইউনিয়নের ডোয়াইবাড়ি গ্রামের মাসুদ রানার স্ত্রী রতœার প্রসব বেদনা শুরু হলে কাপাসিয়ায় বেসরকারি শীতলক্ষ্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিকেল ৫ টা ৫ মিনিটের সময় গাইনি বিভাগের সার্জন ডা. হাসানুর রহমান সোহাগ ও ডা. মোসলেম উদ্দিনের তত্বাবধানে সিজারিয়ান অপারেশন শুরু হয়। অপারেশনের পর দুটি জোড়া লাগানো শিশুকে ডাক্তার সুস্থ অবস্থায় বের করে আনেন। এ বিষয়ে ডা. সোহাগ সাংবাদিকদের জানান, ম্যাডিকেলের পরিভাষায় এ জাতীয় রোগীকে কনজয়েন টুয়িন (জোরাকো এবডোমিনো পিগাস) বলা হয়। নবজাত কন্যা শিশু দুটির নাভী থেকে বুক পর্যন্ত জোড়া লাগানো থাকলেও প্রত্যেকেরই দুটি হাত, দুটি পা, দুটি মাথাসহ অন্যান্য অঙ্গ প্রত্যঙ্গ স্বাভাবিক অবস্থায় আছে এবং তারা স্বাভাবিকভাবেই নড়াচড়া করছে। তবে একটি শিশুর ঠোট কাটা রয়েছে। তিনি আরো জানান, বর্তমানে আমাদের দেশে সফলভাবে এ জাতীয় রোগী অপারেশন করে আলাদা করা এবং স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সম্ভব।
একটি তৈরি পোষাক কারখানার কর্মী নবজাতকদ্বয়ের পিতা মাসুদ রানা জানান, প্রায় সাত বছর আগে তার স্ত্রী একটি কন্যা শিশু সুস্থ অবস্থায় প্রসব করেছে। কিন্তু এবার এমন জোড়া লাগানো জমজ শিশু জন্মের পর তিনি অনেকটা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছেন। এ জাতীয় অপারেশন কোথায় কিভাবে করাতে হয় এবং কি পরিমাণ খরচ পড়বে সে বিষয়ে তার কোনো ধারণা নেই। এ ব্যাপারে কোনো সরকারি বা বেসরকারি সহায়তা পেলে তার জন্য সুবিধা হবে বলে তিনি জানান। তাদের সুস্থতার জন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন।

Spread the love
  • 10
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    10
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *