চলমান শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত কোচের দায়িত্ব পাওয়া জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজনের একটি ভিডিও সোমবার (২৯ জুলাই) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। যেখানে দেখা যায় কলম্বোর একটি ক্যাসিনোতে জুয়া খেলছেন সুজন। কলম্বো শহরটি এমনিতেই ক্যাসিনোর জন্য বিখ্যাত। এখানে নামকরা সব ক্যাসিনো রয়েছে।

গোপনে ধারণ করা ভিডিওতে দেখা গেছে, কলম্বোর জনপ্রিয় একটি জুয়ার আসর ‘বেলিস ক্যাসিনো’তে খালেদ মাহমুদ সুজন একজন নারী ওয়েটারের হাত থেকে ব্যাংকের এটিএম অথবা ক্রেডিট কার্ড গ্রহণ করছেন। এরপর তিনি এগিয়ে যান একটি জুয়ার টেবিলের দিকে। যাতে আরও বেশ কয়েকজন মানুষকে দেখা যায়।

১১ সেকেন্ডের ভিডিওটির স্থানের সঙ্গে ‘বেলিস ক্যাসিনোর’ শতভাগ মিল খুঁজে পাওয়া গেছে। তবে ক্যাসিনোতে যাওয়ার ব্যাপারটি অস্বীকার করেননি খালেদ মাহমুদ, তবে জুয়া খেলার জন্য যে যাননি তা বলেন জোর গলায়।

সুজন বলেন, ‘আমার এক বন্ধুকে নিয়ে সেখানে গিয়েছিলাম। ক্ষুধা পেয়েছিল বলে সেখানে যাই খাওয়ার জন্য। ক্যাসিনোতে শুধু কার্ড খেলা হয় না, খাবারও পাওয়া যায়। সে কারণেই ওখানে যাই।’

ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া এ ভিডিও নিয়ে শুরু হয় প্রবল আলোচনা। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ার কথা জানালে সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘এটা তো আমি চাইলেও থামাতে পারব না। তবে, বিষয়টা স্বস্তিকর না। যে বা যারা এটা ছড়িয়েছে ঠিক করেনি। আমি ব্যক্তি মানুষ হিসেবে কোথাও ঘুরতে যেতেই পারি। আর আমি সেখানে ৫-৭ মিনিট থেকেই চলে আসি।’

সুজনের বিরুদ্ধে জুয়ার আসরে যাওয়ার অভিযোগ নতুন নয়। এর আগে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে তিনি ক্যাসিনো বিতর্কে জড়িয়েছিলেন। জাতীয় দলের ম্যানেজার হিসেবে ওই বিশ্বকাপে গিয়ে তিনি অস্ট্রেলিয়ার একটি ক্যাসিনোতে ক্যামেরাবন্দি হন। তবে পরে তিনি জুয়ার কথা অস্বীকার করে জানান, রাতের খাবার খুঁজতে তিনি ক্যাসিনোতে ঢুকে যান।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *